আইপিএলে এবার সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য পাচ্ছেন সাকিব-মোস্তাফিজ

42

৮ দল থেকে এবারের আইপিএল উন্নীত হয়েছে ১০ দলে। এর মধ্যে ২০১৮ সালের পর এবারই আইপিএলের জন্য মেগা নিলাম অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। যেখান থেকে ১০টি ফ্রাঞ্চাইজি তাদের স্কোয়াড গঠন করে নেবে। আগামী ১২ এবং ১৩ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে আইপিএলের এই মেগা নিলাম।

সেই নিলামের লক্ষ্যে এরই মধ্যে ১২১৪ জন ক্রিকেটারের তালিকা তৈরি করেছে আইপিএল কর্তৃপক্ষ। যেখানে সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ২ কোটি ভারতীয় রুপি। সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্যের ক্রিকেটারদের মধ্যে ১৭ জন ভারতীয় এবং ৩২জন বিদেশী ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে। বিদেশীদের তালিকায় রাখা হয়েছে বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান এবং মোস্তাফিজুর রহমানের নামও।

এবারও আইপিএলে সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ২ কোটি রুপি। এরপর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য দেড় কোটি, তৃতীয় সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য ১ কোটি রুপি।

আইপিএলের গত আসরের নিলামেও উঠেছিল সাকিব এবং মোস্তাফিজের নাম। যেখানে সাকিব আল হাসানের গতবারও ছিল সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য, ২ কোটি রুপি। আর মোস্তাফিজুর রহমানের ভিত্তিমূল্য ছিল ১ কোটি রুপি। নিলাম থেকে সাকিব আল হাসানকে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে কিনে নেয় কলকাতা নাইট রাইডার্স এবং মোস্তাফিজকে ভিত্তিমূল্যের ১ কোটি রুপিতেই কিনে নেয় রাজস্থান রয়্যালস।

এবার সাকিবের সঙ্গে সমান ভিত্তিমূল্য ২ কোটি রুপিতে উঠে এলেন মোস্তাফিজ। মূলতঃ ২০২১ সালে বল হাতে দুর্দান্ত ছিলেন মোস্তাফিজ। শুধু আইপিএলেই নয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও। যে কারণে মোস্তাফিজ ঠাঁই পেয়েছিলেন আইসিসির বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি দলেও।

সর্বশেষ বিশ্বকাপের ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার এবং ম্যান অব দ্য ফাইনাল ছিলেন মিচেল মার্শ। এই দু’জনকেই রাখা হয়েছে সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্যে।

অথচ, গত আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে যে আচরণ করেছে, তা ছিল রীতিমত অমানবিক। ম্যাচের পর ম্যাচ বসিয়ে রাখাই নয় শুধু, শেষ পর্যন্ত দল থেকেই বাদ দিয়েছিল তারা। অথচ, সেই ওয়ার্নারই বিশ্বকাপে দেখিয়ে দিলেন, তার ব্যাটে কী আছে!

মোট ১২১৪ জন ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে এবারের আইপিএলের মেগা নিলামের তালিকায়। এর মধ্যে ২৭০জন খেলছেন বর্তমানে বিভিন্ন দেশের জাতীয় দলের হয়ে। আর এখনও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই অভিষেক হয়নি, এমন ৩১২ জন ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে তালিকায়। এছাড়া আইসিসির সহযোগী দেশগুলো থেকেও রাখা হয়েছে মোট ৪১জন ক্রিকেটারকে।

পুরো তালিকাটা এরই মধ্যে আইপিএলের নিলামে অংশ নিতে যাওয়া ১০টি ফ্রাঞ্চাইজির সবার কাছেই পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে, ক্রিকইনফো জানিয়েছে, যে তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে, এটার মধ্যে সর্বশেষ আরো একটা কাটছাঁট হতে পারে। যেটা আগামী কয়েকদিনের মধ্যে হয়ে যাবে।

২০১৮ সালের পর এবার যেহেতু মেগা নিলাম অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, তাতে মনে হচ্ছে টাকা ছড়াছড়ির রেকর্ড হতে পারে। নিলামের আগে প্রতিটি দলকেই কিছু খেলোয়াড় রেখে দেয়া কিংবা অটো বাছাই করার সুযোগ দেয়া হয়েছিল। ১০টি ফ্রাঞ্চাইজি এরই মধ্যে সর্বমোট ৩৩৮ কোটি রুপি ব্যায় করে ফেলেছে সব মিলিয়ে ৩৩জন খেলোয়াড় দলভূক্ত করার জন্য।

নিলামে প্রতিটি ফ্রাঞ্চাইজি তো টাকার বস্তা নিয়েই প্রবেশ করবে। তবে ক্রিকইনফো জানাচ্ছে- পাঞ্জাব কিংস, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, রাজস্থান রয়্যালস অন্য যে কারো চেয়ে বেশি টাকা নিয়ে প্রবেশ করবে নিলামে।

সর্বোচ্চ ভিত্তিমূল্য ২ কোপি রুপি পাচ্ছেন যারা

ভারতীয়

রবিচন্দ্র অশ্বিন, ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল, দিপক চাহার, শিখর ধাওয়ান, স্রেয়াশ আয়ার, দিনেশ কার্তিক, ইশান কিশান, ভুবনেশ্বর কুমার, দেবদুত পাডিক্কাল, ক্রুনাল পান্ডিয়া, হার্শাল প্যাটেল, সুরেশ রায়না, আম্বাতি রাইডু, মোহাম্মদ শামি, শার্দুল ঠাকুর, রবিন উথাপ্পা এবং উমেশ যাদব।

বিদেশি

মুজিব জাদরান, অ্যাস্টন অ্যাগার, নাথান কাউল্টার-নেইল, প্যাট কামিন্স, জস হ্যাজলউড, মিচেল মার্শ, স্টিভেন স্মিথ, ম্যাথ্যু ওয়েড, ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যাডাম জাম্পা, সাকিব আল হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, স্যাম বিলিংস, সাকিব মাহমুদ, ক্রিস জর্ডান, ক্রেইগ ওভারটন, আদিল রশিদ, জেসন রয়, জেমস ভিন্স, ডেভিড উইলি, মার্ক উড, ট্রেন্ট বোল্ট, লকি ফার্গুসন, কুইন্টন ডি কক, মার্চেন্ট ডি লাঙ, ফ্যাফ ডু প্লেসি, কাগিসো রাবাদা, ইমরান তাহির, ফ্যাবিয়েন অ্যালেন, ডোয়াইন ব্র্যাভো, এভিন লুইস, ওডেন স্মিথ।