‘ওমিক্রনের বিরুদ্ধে কাজ করবে ফাইজারের বুস্টার ডোজ’

34

 

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের বিরুদ্ধে কাজ করবে ফাইজারের বুস্টার ডোজ, এমন দাবি করেছে টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ফাইজার-বায়োএনটেক। এক বিবৃতিতে টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, ছোট পরিসরে গবেষণায় পরীক্ষার মাধ্যমে এই সফলতা পাওয়া গেছে।

তারা জানিয়েছে, টিকার তিনটি ডোজ নিলেই ওমিক্রনের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি তৈরি হবে, করোনার অন্যান্য ধরন ঠেকাতে যেখানে দুটি ডোজ নিতে হয়।

বুধবার (৮ ডিসেম্বর) এক বিবৃতির মাধ্যমে, ফাইজারের প্রধান নির্বাহী আলবার্ট বোরলা বলেন, টিকার তৃতীয় ডোজ দিয়েই এই নতুন ধরনের বিরুদ্ধে সুরক্ষা দেওয়া সম্ভব হবে।

তিনি আরও বলেন, করোনা ছড়িয়ে পড়ার বিরুদ্ধে যত দ্রুত সম্ভব করোনা টিকার প্রথম দুই ডোজ পুরোপুরি সম্পন্ন করে এবং তৃতীয় ডোজ নিলে সবচেয়ে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

তবে ফাইজার ও বায়োএনটেক কোম্পানি, এই গবেষণার ফলকে প্রিলিমিনারি বলছে এবং তারা ওমিক্রন সম্পর্কিত আরও ডাটা সংগ্রহ অব্যাহত রেখেছে প্রকৃত চিত্র বোঝার জন্য।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, তারা শুধু অমিক্রন প্রতিরোধে একটি টিকা তৈরি করছে এবং তা আগামী ১০০ দিনের মধ্যে সরবরাহের জন্য তৈরি হবে।

এর আগে প্রচলিত করোনাভাইরাসের টিকাগুলো অমিক্রন সংক্রমিতদেরকেও গুরুতর অসুস্থ হবার হাত থেকে রক্ষা করতে পারবে বলে জানিয়েছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) গত ২৪ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানায়, এটি দ্রুত রুপান্তর ঘটিয়ে ছড়ানোর সক্ষমতা রাখে অন্যান্য ধরনের তুলনায়। ওমিক্রন এখন বিশ্বের ৫৭টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এক সাপ্তাহিক রিপোর্টে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, এটি যত ছড়াবে, হাসপাতালে সেবা নিতে যাওয়া মানুষের সংখ্যা তত বাড়বে। বিশ্বজুড়ে গবেষকরা ওমিক্রন সম্পর্কে ডেটা একত্রিত করছেন এবং গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

সূত্র: বিবিসি, রয়টার্স