কমলনগরে নির্বাচনী মাঠে অস্ত্রের মহড়া, এলজিসহ পাকড়াও ২

5

লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের সদস্য গিয়াস উদ্দিন মোল্লাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে। তিনি কমলনগর উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য (মেম্বার) প্রার্থী নাসির উদ্দিনের (তালা) ভাই। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) দিবাগত গভীর রাতে চরলরেঞ্চ ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। এসময় স্থানীয়রা একটি এলজিসহ ২ যুবককে আটকের পর পুলিশে সৌপর্দ করে।

আজ বুধবার (১০ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসলেহ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অস্ত্রের মহড়া দেওয়ার সময় স্থানীয়রা তাদেরকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে তাদেরকে একটি দেশীয় এলজিসহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

আটকরা হলেন আরমান কবির ও মাইনুল ইসলাম প্রদীপ। তারা পার্শ্ববর্তী ইউনিয়নের বাসিন্দা। স্থানীয়দের দাবি, ভাড়ায় তারা অস্ত্রের মহড়া দিয়ে নির্বাচনী এলাকায় বিশৃঙ্খলা করতেই ঘটনাটি ঘটিয়েছে।

লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের সদস্য গিয়াস উদ্দিন মোল্লা অভিযোগ করে বলেন, আমার ভাই নাসির উদ্দিন (তালা) ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী। গত কয়েকদিন বহিরাগত কয়েকজন আমাকে এলাকায়ে খোঁজেন। আটকরা এসে স্থানীয়দের কাছে আমার খোঁজ নিয়েছেন। পরে বাড়িতে এসে তারা আমাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে একরাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এতে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে তারা আরও ৩-৪ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। একপর্যায়ে স্থানীয়রা তাদের আটক করে। ফুটবল প্রতীকের আজমির হোসেনের পক্ষে মাহবুবুল আলম দোলন ও শাহিন আলম এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে কমলনগরের চরলরেন্স ইউনিয়নে ১১ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম নুরুল আমিন মাস্টার বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় এ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এখানে শুধু সদস্য পদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।