দেশে করোনায় আরও ১৬ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৬৯৯ জন

43

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ৬ হাজার ১০৮ জনের।

নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন এক হাজার ৬৯৯ জন। সবমিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার লাখ ২৩ হাজার ৬২০ জনে।

 

মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গবিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৬৪৮ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন তিন লাখ ৪১ হাজার ৪১৬ জন। সারাদেশে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১১৫ টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৩ হাজার ৬১৬ টি। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৩ হাজার ৫২০ টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ২৪ লাখ ৭০ হাজার ১৬৪ টি।

এতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার হার ১২ দশমিক ৫৭ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ১৫ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮০ দশমিক ৫৯ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৪ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে নাসিমা সুলতানা জানান, ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১৬ জনের মধ্যে ১৫ জন পুরুষ ও নারী একজন। তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে তিনজন। এছাড়া রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগে একজন করে তিনজন রয়েছেন। হাসপাতালেই মারা গেছেন ১৫ জন। বাড়িতে একজন।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে ১২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে দুইজন রয়েছেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ১৬৮ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ১৬৮ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৮৭ হাজার ৬৩৫ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৭৫ হাজার ৪৩৭ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ১৯৮ জন।

দেশে গত ৮ মার্চ করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত (কোভিড-১৯) প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।