কারাগারেই বিয়ের সুযোগ পাচ্ছেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ

32

যুক্তরাজ্যের বেলমার্শ কারাগারে বন্দী রয়েছেন উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। তিনি তার বাগদত্তা স্টেলা মরিসকে বিয়ের অনুমতি পেয়েছেন। কারাগারেই বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে পারবেন তারা। গোপন নথি ফাঁসের অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রে প্রচলিত গুপ্তচরবৃত্তির আইনের মামলার আসামি অ্যাসাঞ্জ। ২০১২ সাল থেকে লন্ডনে ইকুয়েডর দূতাবাসের আশ্রয়ে থাকার পর ২০১৯ সালে জামিনের শর্ত ভঙ্গের অভিযোগে যুক্তরাজ্য পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন তিনি। তখন থেকে বেলমার্শ কারাগারে বন্দী রয়েছেন তিনি।

সম্প্রতি কারাগারে বিয়ে করার অনুমতি চেয়ে কারা গভর্নরের কাছে আবেদন করেন ৫০ বছর বয়সী জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। প্রচলিত নিয়মে কারা গভর্নর অ্যাসাঞ্জের আবেদনটি গ্রহণ, বিবেচনা ও আমলে নিয়েছেন। বিষয়টি নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে নিশ্চিত করেন টেলা মরিস। তিনি লেখেন, ‘জুলিয়ান ও আমার এখন বেলমার্শ কারাগারে বিয়ের অনুমতি আছে। আমি স্বস্তি পেয়েছি কিন্তু এখনও ক্ষুব্ধ যে, বিয়ের মৌলিক অধিকারে অবৈধ হস্তক্ষেপ বন্ধ করতে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন ছিল।’

স্টেলা মরিসের সঙ্গে অ্যাসাঞ্জের সম্পর্কের বিষয়টি প্রথম প্রকাশ্যে আসে তিনি জেলে যাওয়ার পর। ২০১১ সালে অ্যাসাঞ্জের আইনজীবী দলে যোগ দেওয়ার পরই প্রথম দেখা হয় তাদের। ইকুয়েডর দূতাবাসে গিয়ে প্রায় প্রতিদিন অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে দেখা করতেন স্টেলা মরিস।

২০১৫ সালে তারা একে অপরের প্রেমে পড়ে যান। দুই বছর পর তাদের বাগদান সম্পন্ন হয়। ইকুয়েডর দূতাবাসে থাকাকালেই গর্ভধারণ করেন তিনি। দুই সন্তানের জন্মের সময় দূতাবাস থেকে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে অ্যাসাঞ্জ যুক্ত হয়েছিলেন বলে জানান স্টেলা।