কেউ ইচ্ছে করে ক্যাচ মিস করে না: তামিম

59

একটা দুইটা নয়, অন্তত পাঁচটি ক্যাচ মিস করলেন ফিল্ডাররা। আর এই ক্যাচ মিসের মহড়ায় ম্যাচের সঙ্গে সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজটাও হেরে গেল বাংলাদেশ।

এমন হারে সমর্থকদের মতো তামিম ইকবালও অনেক হতাশ। তবে টাইগার অধিনায়কের মতে, কেউ ইচ্ছে করে ক্যাচ মিস করে না।

নিউজিল্যান্ডের ইনিংসের ৩৪তম ওভারে চতুর্থ উইকেটের বিদায়ের পর ৩৬ থেকে ৩৮ ওভারে বাংলাদেশ অন্তত ৫টি ক্যাচ ছাড়ে। তাসকিনের বলে মুশফিক, তাসকিনের বলে মিঠুন, মেহেদি হাসান নিজের বলে নিজেই (দুবার), তাসকিনের বলে মেহেদি।

এমন অনেক সম্ভাবনা জাগলেও লুফে নিতে পারেননি ফিল্ডাররা। যেন ক্যাচ মিসের মহড়া হচ্ছিল। অন্যদিকে জীবন পেয়ে ঠিকই দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে ও সেঞ্চুরি করে কিউইদের এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জেতান অধিনায়ক টম ল্যাথাম। তিন ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয়টিতে ৫ উইকেটে হেরে সিরিজ পরাজয় হলো বাংলাদেশের। অথচ জয়ের পাল্লা বড় একটা সময় টাইগারদের দিকেই হেলে ছিল।

ম্যাচ শেষে তামিম ইকবাল বলেন, ‘ম্যাচটা জেতা উচিত ছিল। বোলাররা সুযোগ তৈরি করেছি, আমরা কাজে লাগাতে পারিনি। ক্যাচ মিসের কথা বলছি। পরিস্থিতি অনুযায়ী শতভাগ দিতে হয়। আমরা হতাশ। ব্যাটসম্যানরা ভালো করেছে। আজকের পিচ ভিন্ন ছিল। আগের চেয়ে কিছুটা স্লো। ২৭১ সম্মানজনক স্কোর। যখন সুযোগগুলো আসে, আমরা ধরতে পারিনি।

হাতের ফাঁক গলে ক্যাচ মিসে ম্যাচ মিস হওয়ায় হতাশার পাশাপাশি কিছু ভালো দিকও খুঁজে নিচ্ছেন টাইগার দলপতি, ‘(ক্যাচ মিস) বেশ হতাশাজনক। তবে মিথুন দারুণ খেলেছে। মুশফিকও ভালো ছিল। যাই হোক, আমার মতে আমাদের খেলায় বেশ উন্নতি হয়েছে। আমরা অবশ্য খেলার উন্নতি করতে আসিনি, জিততে এসেছি। ক্যাচ মিস হলে খারাপ লাগে। আমরা যদি দুটি সুযোগ নিতে পারতাম, খেলার ফল ভিন্ন হতে পারতো। কেউ ইচ্ছে করে ক্যাচ মিস করে না। এটা যে কারো ক্ষেত্রেই হতে পারে। পরেরবার সুযোগ এলে দুই হাতে লুফে নিতে হবে। ওয়েলিংটনে আমাদের ইতিবাচক থাকতে হবে এবং আবারও তাদের চাপে ফেলতে হবে। ’

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথাম। যেখানে প্রথমে ব্যাট করে বাংলাদেশ নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান করে। জবাবে ৫ উইকেট হারিয়ে ১০ বল বাকি থাকতে জয় নিশ্চিত করে স্বাগতিকরা।

আগামী শুক্রবার (২৬ মার্চ) ভোর ৪টায় ওয়ালিংটনের বেসিন রিজার্ভে মাঠে গড়াবে তৃতীয় ম্যাচ।