চীনের গোয়াংজো মেলায় উদ্যোক্তা শামীম আরা’র পাটজাত পণ্য

85

শামীম আরা দীপা একজন উদীয়মান বাংলাদেশি উদ্যোক্তা। যিনি পাটজাত পণ্য নিয়ে দীর্ঘদিন কাজ করে চলেছেন। বর্তমানে তার তৈরি পন্য স্থান পেয়েছে চীনের গোয়াংজো মেলায়। বাংলাদেশ চায়না চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রির মাধ্যমে চীনের গোয়াংজো মেলায় পৌঁছেছে তার পাটজাত পণ্য। সম্প্রতি এ সব বিষয় নিয়ে কথা হয় জয়বাংলানিউজের সঙ্গে। সেখানে তিনি অনেক অজানা কথা তুলে ধরেছেন। পাঠকের উদ্দেশ্যে তার কিছু অংশ তুলে ধরা হল-

গত ৪ আগস্ট উদ্যোক্তা শামীম আরা দীপার ‘রাহেলা জুট ক্রাফট’-এর পাটজাতপণ্যের বাহারি সাইড ব্যাগ,ফ্যান্সি ব্যাগ,হ্যান্ড পার্স চীনের উদ্দেশে রওনা হয়। করোনার মধ্যেও নিজের পণ্য দেশের বাইরে মেলায় স্থান পাচ্ছে বিষয়টি জানতে চাইলে শামীম আরা দীপা বলেন, এটা সত্যিই আনন্দঘন মুহূর্ত। এই কোভিড সিচুয়েশনের মধ্যেও এমন একটি কাজ আমাকে আরও বেশি অনুপ্রাণিত করেছে।

এসময় তিনি বাংলাদেশ চায়না চেম্বার অব কমার্স-এর সেক্রেটারি আবু তাহেরকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আবু তাহের আমার পণ্যের ছবি পাঠাতে বললে আমি ছবি পাঠায় তারা পছন্দ করেন এবং যেগুলো দিয়ে আমি ভার্চুয়ালি একটি মেলায় অংশ নেই। সেখানে আমার পণ্য সকলে খুব পছন্দ করে এবং তারপরেই আবু তাহের এই মেলাতে অংশ নেওয়ার জন্য জানান। যা নিঃসন্দেহে আমার কাছে খুব ভালো লাগার বিষয়।

তরুণদের উদ্দেশ্যে শামীম আরা দীপা বলেন, সঠিক কাজকে বাছাই করে সেটাকে ভালোবাসতে হবে। সেখানে সময় ব্যয় করতে হবে, প্রতিবন্ধকতা আসলে দমে না যেয়ে সাহসিকতার সাথে জয় করতে হবে। তবেই সফলতা মিলবে।

সাবেক মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির সঙ্গে দীপা

শামীম আরা দীপা ২০১১ সাল থেকে পাটপণ্য নিয়ে কাজ করছেন। একটি পুরাতন মেশিন সেই সাথে ১৫ হাজার পুঁজি নিয়ে শুরু হয়েছিল ‘রাহেলা জুট ক্রাফট’- এর যাত্রা।শাশুড়ির নামে নামকরণ করেছিলেন প্রতিষ্ঠানের।

বর্তমানে রাহেলা জুট ক্রাফটসে ১৫ টি মেশিন রয়েছে। যেখানে বর্তমানে স্থায়ীভাবে ৬ জন এবং মাঠ পর্যায়েও শত’র বেশি সহোযোদ্ধা কাজ করছেন।সেখানে তৈরি হচ্ছে সাইড ব্যাগ,ফ্যান্সি ব্যাগ,হ্যান্ড পার্স,টেবিল রানার,জুতা,পাঞ্জাবি, ফাইল ফোল্ডার,পেন হোল্ডারসহো নানান ধরনের নান্দনিক ডিজাইনের পাট পণ্য।

২০১২ তে কলকাতা ইন্টারন্যাশনাল মেগা ট্রেড ফেয়ারে অংশ নেওয়ার মধ্যে দিয়ে তিনি দেশের বাইরে মেলাতে অংশ নেওয়া শুরু করেন। তিনি এখন পর্যন্ত দেশের বাইরে মোট ১০ টি দেশের মেলায় তার পণ্য নিয়ে অংশ নিয়েছেন। এছাড়াও এই পরিস্থিতিতেও বিভিন্ন দেশে পণ্য পাঠানোর জন্য বায়ার রা তার প্রতিষ্ঠানে আসছেন।

এছাড়াও সারা দেশে উদ্যোক্তার নিজস্ব অয়েব সাইট,অনলাইন পেজ,জেডিপিসি শোরুমসহ আরও বেশ কিছু ওয়েবসাইট থেকে পৌঁছে যাচ্ছে রাহেলা জুট ক্রাফটসের পণ্য।