তিন উইকেট হারিয়ে লাঞ্চে গেলেন মুমিনুলরা

41

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে দুই দিনের একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশ দলের ব্যাটসম্যান সাদমান ইসলাম। আজ (বুধবার) শুরু হওয়া একমাত্র টেস্টে তার জায়গা অনিশ্চিত ছিল। তবে তামিম ইকবালের চোটে ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয় সাদমানের। সুযোগ পেয়েও সেটি কাজে লাগাতে পারলেন না, ২৩ রান করে আউট হন সাদমান।

তার আগে সাইফ হাসান ও নাজমুল হোসেন শান্তও সুবিধা করতে পারেননি। প্রথম দিনের প্রথম সেশনে টপ অর্ডারের ৩ উইকেট হারিয়ে ধুকছে টাইগাররা। মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে যাওয়ার আগে বাংলাদেশ দলের সংগ্রহ ৭০ রান।

পাঁচদিনের ম্যাচের শুরুর দিনের প্রথম সেশনে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষা নিয়েছেন জিম্বাবুয়ের দুই পেসার ব্লেসিং মুজারাবানি ও রিচার্ড এনগারাভা। ইনিংসের প্রথম ওভারে সাইফকে খালি হাতে ফেরান মুজারাবানি। নিজের তৃতীয় ও ইনিংসের পঞ্চম ওভারে শান্তকে সাজঘরে ফেরান এই ডানহাতি পেসার।

অধিনায়ক মুমিনুল হকের সঙ্গে জুটি গড়ে শুরুর বিপর্যয় কাটানোর ইঙ্গিত দেন সাদমান, তবে ইনিংস বড় করতে পারেননি। ২৩ রানে থাকা সাদমানকে আউট করেন এনগারাভা।

এদিন হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে টস ভাগ্য কথা বলে লাল-সবুজের পক্ষে। টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন মুমিনুল। তবে সফরকারীদের একাদশে দেখা যায় চমক। শ্রীলঙ্কায় তিন পেসার খেলালেও জিম্বাবুয়েতে রাখা হয়েছে দুই পেসার। ইয়াসির আলী রাব্বি আবারও উপেক্ষিত, সেখানে প্রায় ১৬ মাস পর সুযোগ পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

তবে ব্যাট করতে নেমে সুবিধা করতে পারেনি সফরকারীরা। ইনিংসের প্রথম ওভারেই ফেরেন ওপেনার সাইফ হাসান। খানিক পর একই পথ ধরেন শান্তও। তৃতীয় উইকেটে সাদমান-মুমিনুল ৬০ রানের পার্টনারশিপ গড়ে দলকে টেনে তোলেন। তবে প্রথম সেশনের খেলা শেষ হওয়ার আগে ২৩ রান করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন সাদমান। পরে ৩ উইকেট হারিয়ে স্কোর বোর্ডে ৭০ রান তুলে বিরতিতে যায় বাংলাদেশ দল। অধিনায়ক মুমিনুল ৩২ রানে অপরাজিত থেকে দ্বিতীয় সেশনের খেলা শুরু করবেন। মুশফিক আছেন ১ রান নিয়ে।