প্রথম পর্বের ইজতেমায় ৭ মুসল্লির মৃত্যু

আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হয়েছে প্রথম পর্বের ইজতেমা। রোববার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে শেষ হয় ইজতেমার এ পর্ব। এদিকে, ইজতেমার প্রথম পর্বে যোগ দেওয়া মুসল্লিদের মধ্যে সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। বার্ধক্যজনিত নানা রোগে তারা মারা যান বলে জানা গেছে।

রোববার (১৫ জানুয়ারি) ইজতেমার মিডিয়া সমন্বয়কারী জহির ইবনে মুসলিম গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের মধ্যে বার্ধক্যজনিত ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে এ পর্যন্ত সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ১২ জানুয়ারি বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান নুরুল হক ও আবু তালেব। পরদিন শুক্রবার ইজতেমার প্রথম দিনে মারা যান হাজী মোহাম্মদ হাবিবউল্লাহ হবি ও মোফাজ্জল হোসেন খান।
ইজতেমার দ্বিতীয় দিন শনিবার আক্কাছ আলী সিকদার, আব্দুল রাজ্জাক ও হাবিবুর রহমান হবি মারা যান। সবার জানাজা ইজতেমা ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ইজতেমা ময়দানে মৃতদের পরিচয়
ইজতেমার প্রথম পর্বে মৃতদের মধ্যে আছেন সিলেটের হরিপুরের হেমুবটে পাড়া গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে নূরুল হক (৬৩), গাজীপুরের ভুরুলিয়া এলাকার আবু তৈয়ব ওরফে আবু তালেব (৯০), ঢাকার কেরানীগঞ্জের হাজী মোহাম্মদ হাবিবউল্লাহ হবি (৬৮), ঢাকার কেরানীগঞ্জের মলমলিয়া গ্রামের মোবারক হোসেন খানের ছেলে মোফাজ্জল হোসেন খান (৭০), মুন্সীগঞ্জের আদিল উদ্দিন সিকদারের ছেলে আক্কাছ আলী সিকদার (৫০), চট্টগ্রামের রাউজান গ্রামের আব্দুল রশিদের ছেলে আব্দুল রাজ্জাক (৭০) ও নরসিংদী জেলার মাছিমপুর গ্রামের রহমত উল্লার ছেলে হাবিবুর রহমান হবি (৭০)।

শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্যে দিয়ে প্রথম পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শুরু হয়। আজ রোববার সকাল ১০টা ২০ মিনিটে আখেরি মোনাজাতের মধ্যে দিয়ে শেষ হয় এই পর্বের ইজতেমা।

চার দিন বিরতির পর আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হবে দ্বিতীয় পর্বের ইজতেমা। শেষ হবে আগামী রোববার।