বগুড়ায় ১৩৫০০ বর্গফুটের জাতীয় পতাকা প্রদর্শন

63

১৩৫০০ বর্গফুটের জাতীয় পতাকা প্রদর্শন করেছে বগুড়া জিলা স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সংগঠন আল্যামনাই অ্যাসোসিয়েশন। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১০টায় বগুড়া জিলা স্কুল মাঠে প্রদর্শন করা হয়। শেষ হয়েছে বিকেল ৩টায়।

সংগঠনটি দাবি করেছে এটিই ইতিহাসে সর্ববৃহৎ কাপড়ের পতাকা প্রদর্শনী। এসময় মুক্তিযুদ্ধে বগুড়া জিলা স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষার্থী শহীদ ৮ জনের আত্মকথা নিয়ে অস্থায়ী মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার স্থাপন করা হয়েছে।

পতাকায় ৬৪ থান কাপড় ব্যবহার করা হয়েছে। যার প্রতিটি থানের কাপড়ের দৈর্ঘ্য ৯০ ফুট ও প্রস্থ ৩ ফুট। অর্থাৎ পতাকাটির দৈর্ঘ্য ১৫০ ফুট ও দৈর্ঘ্য ৯০ ফুট।

আল্যামনাই অ্যাসোসিয়েশনের রাকিব জুয়েল জানান, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে বগুড়া জিলা স্কুল এর প্রাক্তন ছাত্রদের সংগঠন আল্যামনাই অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বিদ্যালয় মাঠে ১৩৫০০ বর্গফুটের জাতীয় পতাকা প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। আমাদের তথ্য বলছে এটিই ইতিহাসের সর্ববৃহৎ কাপড়ের পতাকা প্রদর্শনী।

এছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে স্থাপন করা হচ্ছে একটি অস্থায়ী মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার। ইতিহাস পরিক্রমায় দেখা যায়, এ স্কুল থেকে অন্তত সাতজন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হয়েছেন। এছাড়াও অসংখ্য ছাত্র (তৎকালীন) মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন। যার প্রকৃত তথ্য এখনও অজানা। আগামী প্রজন্মের জন্য সেইসব তথ্য সংগ্রহের কাজ করছে বগুড়া জিলা স্কুল আল্যামনাই অ্যাসোসিয়েশন।

জাতীয় পতাকা প্রদর্শনীতে বগুড়া জিলা স্কুল আল্যামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রেজাউল রারী ঈসার সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক জিয়াউল হক, জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মজিবর রহমান মজনু, মুক্তিযোদ্ধা আরশাদ সায়ীদ ও বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শ্যামপদ মুস্তফী।

এছাড়া বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী মুক্তিযোদ্ধা মাসুুদুর রহমান হেলাল, মুক্তিযোদ্ধা এএইচএম আখতারুজ্জামানসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।