বানারীপাড়ায় আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

65

বানারীপাড়া প্রতিনিধি॥
বরিশালের বানারীপাড়ায় ৩নং সৈয়দকাঠি ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র ব্যানারে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ৭১’র রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.রাজ্জাক মাষ্টার প্রতিপক্ষ প্রার্থী নৌকা প্রতিকের আনোয়ার হোসেন মৃধা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক মাওলাদ হোসেন সানার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।

৯ নভেম্বর (মঙ্গলবার) রাত ৯ টায় বানারীপাড়া প্রেসক্লাবে তিনি এ সংবাদ সম্মেলন করেন। এসময় তিনি তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় উপজেলার সৈয়দকাঠি ইউপি নির্বাচনে বিএনপি থেকে এসে নৌকা প্রতিক ভাগিয়ে নেওয়া চেয়ারম্যান প্রার্থী আনোয়ার হোসেন মৃধাকে এলাকার জনগন প্রত্যাখান করেছে।

আমার আনারস প্রতিকে গণজোয়ার সৃষ্টি হওয়ায় পরাজয় আচ করতে পেরে প্রতিপক্ষ প্রার্থী আনোয়ার হোসেন মৃধা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাওলাদ হোসেন সানা বহিরাগত সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের নিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করেছে। মাওলাদ হোসেন সানার নেতৃত্বে বিভিন্ন এলাকার চিহিৃত সন্ত্রাসীরা অর্ধশতাধিক মটরসাইকেল নিয়ে রাত-দিন গোটা সৈয়দকাঠি এলাকায় মহড়া দিয়ে আনারস প্রতিকের কর্মী-সমর্থকদের মারধর,ভয়ভীতি প্রদর্শণ ও নারী কর্মীদের শ্লীলতাহানিসহ নানাভাবে হয়রানি করছে। ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নৌকা প্রতিক ছাড়া অন্যকোন প্রতিকে ভোট না দেওয়ার জন্য হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে।

ফলে জনমনে আতঙ্কের সৃষ্ঠি হয়েছে। এছাড়া আনারস প্রতিকের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় সোমবার গভীর রাতে সৈয়দকাঠি ইউপির বর্তমান জনপ্রিয় চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আ. মন্নান মৃধা,আওয়ামী লীগ নেতা তারিকুল ইসলাম তারেক ও দুলাল বালীর বাড়িতে তারা হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। এছাড়া মঙ্গলবার বিকালে সৈয়দকাঠি ইউনিয়নের আউয়ার বাজারে আনারস প্রতিকের পথযাত্রায় কাওসার,জসিম,সোহেল, শিপন,মহিম ও লালন হাওলাদারের নেতৃত্বে মটরসাইকেল নিয়ে বহিরাগত ক্যাডাররা হামলা চালিয়ে নারী কর্মীদের ওড়না ও বোরকা ধরে টানাটানিসহ শ্লীলতাহানি করে।

এসময় সেখানে উপস্থিত বানারীপাড়া থানার ওসি মো. হেলাল উদ্দিন ও সাধারণ জনতা এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করেন। তিনি বলেন, বহিরাগত ক্যাডারদের এ সশস্ত্র তৎপরতা সুষ্ঠু নির্বাচনের পথে অন্তরায়। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করতে হলে নির্বাচনী এলাকায় বহিরাগতদের প্রবেশ বন্ধ করতে হবে। তিনি অবাধ,সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশনসহ প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়েছেন। এদিকে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাওলাদ হোসেন সানা।