বানারীপাড়ায় সংরক্ষিত ইউপি সদস্য’র বিরুদ্ধে অভিযোগ

61

বানারীপাড়া প্রতিনিধি 

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদের একজন সংরক্ষিত নারী সদস্যের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন কুমার সাহার বরাবরে অভিযোগ করা হয়েছে। স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা শওকত হোসেন শাওন গত ১৪ জুলাই এলাকাবাসীর পক্ষে লিখিত এ অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ওই অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে সম্প্রতি সদর ইউপির ৪,৫ও ৬ নং ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত সংরক্ষিত নারী সদস্য সন্ধ্যা রাণী সমরকার ১০১ জনের একটি ত্রাণের তালিকা করেন। যে তালিকায় তার নিজের আপন ভাই হেমন্ত মিস্ত্রী, তার নিজ ঘরে থাকা মঙ্গলসহ ২৫জন স্বচ্ছল পরিবারের নাম রাখেন।

তবে এলাকায় যারা সরকারি ত্রাণ পাওয়ার যোগ্য তাদের নাম রাখা হয়নি। অপরদিকে ৪নং ওয়ার্ড’র ইউপি সদস্য আসাদুজ্জামান হিরণের দেয়া ২৬টি দুঃস্থ পরিবারের নাম ওই তালিকা থেকে বাদ দেন সন্ধ্যা রানী সরকার। এ বছরের ঈদ-উল-ফিতরের সময়ও সরকারের দেয়া ৪৫০টাকার সহযোগীতায়ও এই নারী সদস্য তার তালিকায় গড়মিল করেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। অপরদিকে এলাকার অর্ধশতাধিক সাধারণ মানুষের স্বাক্ষরসহ একই বর্ণনার অপর একটি অভিযোগ ১৫ জুলাই সকালে সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল ঘরামীর বরাবরে দাখিল করেছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল ঘরামী জানান, তালিকায় গড়মিল নয় সাধারণ ও সংরক্ষিত নারী সদস্যের মধ্যে কিছুটা ভুল বোঝাবোঝি হয়েছিলো। তবে তার ইউনিয়নে প্রকৃত সুবিধাভোগীদের মধ্যে সরকারের সকল প্রকার সহায়তা সমবন্টন করা হয়েছে। নারী সদস্য সন্ধ্যা রাণী সরকার জানান, সে এই নিয়ে পরপর ৪বার নির্বাচিত হয়েছেন। যদি এলাকার দরিদ্র পরিবারের মধ্যে সরকারের ত্রাণ বন্টন না করে স্বচ্ছল পরিবারে দিতেন তবে জনগণ তাকে নির্বাচিত নয় প্রত্যাখ্যান করতেন।