ভিন্ন দুই ম্যাচে একই ব্যবধানে হারল ম্যান ইউ ও পিএসজি

38

জমে উঠেছে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ ‘এইচ’ এর লড়াই। প্রথম তিন ম্যাচ শেষে এখনও পরিষ্কার ফেবারিট নয় কোনো দল। টেবিলের তলানির দল ইস্তানবুল হারিয়ে দিয়েছে শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে। লাইপজিগের বিপক্ষে জিততে পারেনি প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)।

বুধবার রাতে ‘এইচ’ গ্রুপের দুইটি ম্যাচ শেষ হয়েছে একই ব্যবধানে। যেখানে জয় পেয়েছে ঘরের মাঠের দুই দলই। ম্যান ইউকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ইস্তানবুল বাসেকহির। একই ব্যবধানে পিএসজিকে হারিয়ে গত আসরের সেমিফাইনাল ম্যাচের প্রতিশোধ নিয়েছে আরবি লাইপজিগ।

নিজেদের ঘরের মাঠে পিএসজির বিপক্ষে উজ্জীবিত ফুটবল খেলেছে লাইপজিগ। বল দখলের লড়াইয়ে দুই দল প্রায় সমান থাকলেও, একের পর এক আক্রমণ করেছে স্বাগতিকরাই। যার সুফলও তারা পেয়েছে জোড়া গোল করার মাধ্যমে।

তবে ম্যাচের প্রথম গোলটি করেছিল পিএসজি। মাত্র ৬ মিনিটের সময় দলকে এগিয়ে দেন পিএসজির আর্জেন্টাইন তারকা অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। এই গোল শোধ করতে ৪১ মিনিট পর্যন্ত খেলতে হয় লাইপজিগকে। সমতাসূচক গোলটি করেন ক্রিস্টোফার কুনকু।

পরে দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ম্যাচের ৫৭ মিনিটের সময় পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন এমিল ফর্সবার্গ। ডি-বক্সের মধ্যে হ্যান্ডবলের কারণে পেনাল্টিটি পেয়েছিল লাইপজিগ। ম্যাচ শেষের আগে আর গোল না পেলেও দুইটি লাল কার্ড দেখেছেন পিএসজির ইদ্রিসা গুই ও প্রেসনেল কিম্পেম্বে।

গ্রুপের অন্য ম্যাচে তিনটি গোলই হয়েছে প্রথমার্ধে। প্রতিপক্ষের মাঠে খেলতে গেলেও আধিপত্য বিস্তার করেছিল ম্যান ইউ। কিন্তু পায়নি কাঙ্ক্ষিত গোলের দেখা। আগে দুই গোল করে এগিয়ে যায় ইস্তানবুল। পরে একটি শোধ করলেও সমতা ফেরান বা জয়সূচক গোল করতে পারেনি ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

ম্যাচের মাত্র ১২ মিনিটের সময় ইস্তানবুলকে এগিয়ে দেন দেম্বা বা। ম্যান ইউ রক্ষণ তাকে আটকাতেই পারেনি। পরে ৪০ মিনিটের সময় ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এডিন ভিস্কা। এর মিনিট তিনেক পর ব্যবধান কমান অ্যান্থনি মার্শাল। কিন্তু এটি ম্যাচ ইউর পরাজয় ঠেকানোর জন্য যথেষ্ঠ ছিল না।

সব দলের তিন ম্যাচ করে শেষে দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে এখনও সবার ওপরে রয়েছে ম্যান ইউ। সমান ম্যাচে সমান জয় ও সমান পয়েন্ট রয়েছে লাইপজিগেরও। তবে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকায় তাদের অবস্থান দ্বিতীয়। সমান ৩ পয়েন্ট করে নিয়ে তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে পিএসজি ও ইস্তানবুল।