মেসির অভিষেক ম্যাচে পিএসজি’র সহজ জয়

17

ইঙ্গিত মিলেছিল আগেই, নিশ্চয়তা মেলে ম্যাচের ঘণ্টা সাতেক আগে। রেইমসের বিপক্ষে ম্যাচের ২২ জনের স্কোয়াডে লিওনেল মেসিকে রেখেছিলেন প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি) কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো। কিন্তু ১১ জনের মূল একাদশে আর্জেন্টাইন সুপারস্টারকে নামাননি পিএসজি কোচ।

বাংলাদেশ সময় রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে শুরু হয় ম্যাচ। সবার আগ্রহ তখন সাইড বেঞ্চে বসে থাকা লিওনেল মেসির ওপর। সবাই যেন অপেক্ষা করছিলেন, কখন পচেত্তিনো ইশারা দেবেন মেসিকে মাঠে নামার। সেই মাহেন্দ্রক্ষণের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে ম্যাচের ৬৬ মিনিট পর্যন্ত।

পিএসজি ততক্ষণে ২-০ গোলে এগিয়ে। তখন দশ নম্বর জার্সি পরা নেইমার জুনিয়রকে তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন পচেত্তিনো। তার বদলে নামাবেন কাকে? ত্রিশ নম্বর জার্সি পরা লিওনেল মেসিকে। এই জার্সি নম্বরেই বার্সেলোনার হয়ে অভিষেক হয়েছিল মেসির। সেই একই জার্সি নম্বরে এবার পিএসজির হয়ে প্রথম ম্যাচটি খেললেন এ ফুটবল জাদুকর।

jagonews24

মেসির অভিষেকের দিন জয় পেতে কোনো সমস্যাই হয়নি পিএসজির। প্রিয় তারকার অভিষেকে জোড়া গোল করে জয়ের নায়ক তরুণ ফরাসি প্রতিভা কাইলিয়ান এমবাপে। তার দুই গোলেই ২-০ ব্যবধানে জিতেছে পিএসজি, টানা চার জয়ে উঠে গেছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে।

নিজেদের ঘরের মাঠে খেলা ম্যাচের শুরুতে অবশ্য কাঁপন ধরিয়েছিল রেইমসই। প্রথম দশ মিনিটে বেশ কয়েকটি সম্ভাবনাময় আক্রমণ করে তারা। কিন্তু কোনোটিতেই মেলেনি ফল। উল্টো ১৬ মিনিটের সময় প্রথম গোল হজম করে তারা। অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার ক্রস থেকে হেড বল জালে জড়ান এমবাপে।

সেই গোলের পর থেকে নিজেদের খুঁজে পায় পিএসজি। একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে তারা। তবে মেলেনি গোলের দেখা। উল্টো দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল হজম করে বসেছিল তারা। কিন্তু রেইমসের খেলোয়াড় অফসাইডে থাকায় ভিডিও এসিস্ট্যান্ট রেফারির মাধ্যমে বাতিল করা হয় সেই গোল।

jagonews24

রেইমসকে আর কোনো সুযোগ না দিয়ে ম্যাচের ৬৩ মিনিটের সময় দ্বিতীয় গোল করেন এমবাপে। স্বাগতিকদের আক্রমণ নস্যাৎ করে পাল্টা আক্রমণে ওঠে পিএসজি। ডান দিক থেকে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে দূরের পোস্টে থাকা এমবাপের উদ্দেশ্যে বল বাড়ান আশরাফ হাকিমি। সহজেই বাকি কাজ সারেন এমবাপে।

এর মিনিট তিনেক পরেই আসে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। যার জন্য ছিল কোটি মানুষের অপেক্ষা। নিজের প্রিয় বন্ধু নেইমার জুনিয়রের বদলি হিসেবে প্রথমবারের মতো পিএসজির জার্সিতে মাঠে নামেন মেসি। মাত্র ত্রিশ সেকেন্ডের মধ্যেই প্রথম ছোঁয়া দেন বলে, খেলেন ম্যাচের বাকি ২৪ মিনিটে।

নিজের অভিষেক ম্যাচে কোনো গোল এসিস্ট করতে পারেননি মেসি। তবে স্বভাবসুলভ নিখুঁত পাসিং দেখিয়েছেন, করেছেন ড্রিবলও। মাত্র ২৪ মিনিট মাঠে ছিলেন তিনি। এর মধ্যেই তিনবার ফাউল করা হয় তাকে। যা কি না পুরো ম্যাচের মধ্যে সর্বোচ্চ। তবে কোনো গুরুতর চোটের মুখোমুখি হতে হয়নি মেসিকে।

এমবাপের জোড়া গোলে পাওয়া জয়ে চার ম্যাচে পূর্ণ ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে পিএসজি। সমান ম্যাচে মাত্র ৩ পয়েন্ট পাওয়া রেইমসের অবস্থান ১৭তম। আগামী ১২ সেপ্টেম্বর ক্লারমন্ত ফুটের বিপক্ষে ঘরের মাঠে নিজেদের পরের ম্যাচ খেলবে পিএসজি।