যে কারণে ইংল্যান্ডকে নিয়ে চিন্তিত উইলিয়ামসন

27

২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে জোড়া টাই-নাটকের পর বেশি বাউন্ডারি মারার অদ্ভুত নিয়মে নিউজিল্যান্ডের স্বপ্ন ভেঙে শিরোপা উৎসব করেছিল ইংল্যান্ড।

দুই বছর পর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে আবারও মুখোমুখি সেই ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ড।

কিউইদের মধ্যে পুরোনো হিসাব চুকানোর তাড়না থাকলেও আবুধাবিতে মঙ্গলবার ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে প্রতিশোধ শব্দটি মুখেই আনেননি নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। উল্টো তিনি জানালেন ইংল্যান্ডকে নিয়ে তার দল বরং চিন্তিত। এর কারণও রয়েছে যথেষ্ট।  মরগানের দলের প্রায় সবাই রয়েছেন ফর্মে। এমন পরিস্থিতিতে এ দলকে নিয়ে যে কেউ চিন্তায় থাকবে এটিই তো স্বাভাবিক বিষয়।

যদিও চোটের কারণে জেসন রয় ও টাইমাল মিলস ছিটকে গেছেন  ইংল্যান্ড দল থেকে। কিন্তু তা নিয়ে খুব একটা ভাবছেন না নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। কেননা, এ দুজন না থাকলে ইংল্যান্ডের শক্তি যে কমবে তা কিন্তু নয়।

নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক বলেন, ইনজুরি কখনোই কাম্য নয়। ইংল্যান্ডের জন্য ব্যাপারটা দুর্ভাগ্যজনক হলেও তাদের শক্তির জায়গা হলো দলের গভীরতা। দীর্ঘদিন ধরে একের পর এক প্রতিভা উপহার দিয়ে যাচ্ছে তারা। সব পজিশনেই তাদের ভালো বিকল্প আছে। ইংল্যান্ড খুবই শক্তিশালী দল, যারা দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলছে। দলটির প্রায় সবাই ম্যাচ জেতানো খেলোয়াড়। ব্যাটিং লাইনআপ অনেক দীর্ঘ।

ইংল্যান্ডের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপের সামনে নিজের দলের বোলিং সম্পর্কে বলতে গিয়ে উইলিয়ামসন বলেন, সব সংস্করণেই দীর্ঘদিন ধরে একসঙ্গে খেলছে বোল্ট ও সাউদি। তাদের অভিজ্ঞতা নিউজিল্যান্ড দলের জন্য অমূল্য। জুটি বেঁধে অসাধারণ বোলিং করে যাচ্ছে তারা। সামনে থেকে আমাদের বোলিং আক্রমণকে নেতৃত্ব দিচ্ছে। ভিন্ন কন্ডিশনেও খুব ভালোভাবে নিজেদের মানিয়ে নিয়েছে তারা। দলের অন্যতম স্তম্ভ এ দুজন।

২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ফাইনালের স্মৃতি নিয়ে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক বলেন, অসাধারণ এক ম্যাচ ছিল সেটি। শেষটা যেমনই হোক, অভিজ্ঞতাটা কখনো ভোলার নয়। সেবার যেভাবে বিজয়ী নির্ধারণ করা হয়েছিল, সেটি কারও বোধগম্য নয়। কিন্তু নিয়ম তো নিয়মই। আমরা সেটি পেছনে ফেলে পরের চ্যালেঞ্জের দিকে তাকিয়ে। এটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ভিন্ন ম্যাচ, ভিন্ন চ্যালেঞ্জ। অতীত ভুলে আপনাকে এগিয়ে যেতে হবে।