রাজশাহী ও ময়মনসিংহে করোনায় আরও ১৫ মৃত্যু

21

করোনায় রাজশাহী ও ময়মনসিংহে গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে সাতজন ও ময়মনসিংহে আটজন রোগী ছিলেন। বিস্তারিত প্রতিনিধির পাঠানো খবরে-

রাজশাহী : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় সাত জন মারা গেছেন। এর মধ্যে করোনায় দুই জন, উপসর্গে চার জন এবং করোনা নেগেটিভ হয়েও একজন মারা গেছেন।

চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার (২৮ আগস্ট) সকাল ৯টা থেকে রোববার (২৯ আগস্ট) সকাল ৯টার মধ্যে তারা মারা যান।

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে হাসপাতালে দুই জন মারা গেছেন। দুজনই রাজশাহী জেলার বাসিন্দা।

আর করোনা উপসর্গ নিয়ে রাজশাহীর দুই জন, নাটোরের একজন এবং নওগাঁর একজন করে মারা গেছেন। এছাড়া করোনা নেগেটিভ হয়েও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় মারা গেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মরদেহ দাফনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ তিনি জন মারা গেছেন হাসপাতালের নিবীড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ)। এছাড়া কেবিন, ৩, ১৪ ও ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন।

হাসপাতালে মারা যাওয়া দুই জন পুরুষ এবং পাঁচ জন নারী। তাদের মধ্যে ৪ জনের বয়স ৬১ বছরের উপরে। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী দুই জন এবং ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী একজন মারা গেছেন।

পরিচালক আরও জানান, শনিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ৪১৮ শয্যার রামেক করোনা আইসোলেশন ইউনিটে রোগী ভর্তি ছিলেন ১৭৬ জন। একদিন আগেও এই সংখ্যা ছিল ১৭৭।

বর্তমানে রাজশাহীর ৭৯ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৩২ জন, নাটোরের ২৪ জন, নওগাঁর ১৪ জন, পাবনার ১৭ জন, কুষ্টিয়ার দুই জন, চুয়াডাঙ্গার একজন, জয়পুরহাটের তিন জন, সিরাজগঞ্জের একজন, নীলফামারীর একজন এবং মেহেরপুরের দুই জন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

হাসপাতালে করোনা নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৭৫ জন। উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৪৩ জন। করোনা ধরা পড়েনি ভর্তি ২৪ জনের। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৩০ জন। এই একদিনে হাসপাতাল ছেড়েছেন ২৩ জন।

এর আগে শনিবার (২৮ আগস্ট) রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতাল ল্যাবে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩৮ জনের নমুনায়।

একই দিনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে আরও ২৭৮ জনের। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৭ জনের। পরীক্ষার অনুপাতে রাজশাহীর ২১ দশমিক ৩১ শতাংশ, জয়পুরহাটের ১০ শতাংশ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১০ দশমিক ২৩ শতাংশ নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১ আগস্ট থেকে ২৯ আগস্ট পর্যন্ত রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৩৪৫ জন। এর মধ্যে করোনায় ১৪৫ জন, উপসর্গ নিয়ে ১৬৭ জন এবং করোনা নেগেটিভ হয়েও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় ৩২ জনের মৃত্যু হয়।

এর আগে গত বছরের এপ্রিল থেকে চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত রামেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৯ হাজার ৩৯ জন রোগী। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে গেছেন ২ হাজার ৫১১ জন। এই ১৫ মাসে মারা গেছেন ১ হাজার ৬০৯ জন। এর মধ্যে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫২৬ জনের। অন্যদের মৃত্যু হয়েছে উপসর্গ নয়তো অন্যান্য শারীরিক জটিলতায়।

ময়মনসিংহ :  ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজন করোনায় এবং ছয়জন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

রোববার (২৯ আগস্ট) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. মহিউদ্দিন খান মুন।

তিনি জানান, শনিবার সকাল ৮টা থেকে রোববার সকাল ৮টার মধ্যে ইউনিটটিতে করোনায় মারা যাওয়া দুইজনই ময়মনসিংহের। তারা হলেন- জেলার গফরগাঁওয়ের আব্দুর রশিদ (৯০) ও ফজিলা খাতুন (৭০)।

এ ছাড়াও ওই সময়ের মধ্যে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ছয়জনের মধ্যে ময়মনসিংহের তিনজন, নেত্রকোনার দুইজন ও গাজীপুরের একজন রয়েছেন। তারা হলেন- ময়মনসিংহ সদরের এম এ খালেক (৮৫), মুক্তাগাছার আব্দুল হাই (৭৫), হালুয়াঘাটের আব্দুল মান্নান (৪৫), নেত্রকোনার মদনের হারুন অর রশিদ (৬৯), পূর্বধলার শামসুদ্দিন (৭০) ও গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রহিমা খাতুন (৮৫)।

ডা. মুন আরও জানান, করোনা ইউনিটে বর্তমানে রোগী ভর্তি আছেন ১৮৬ জন। এর মধ্যে ১৫ জন আইসিইউতে আছেন। ওই সময়ে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ২৬ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২০ জন।

এদিকে জেলায় এক দিনে ৪৩৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৮০ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৪৮ শতাংশ বলে জানিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম।