রিয়ালের বিপক্ষে পিএসজিকে জেতাতে মরতেও রাজি রামোস

42

রিয়াল মাদ্রিদের পাঁড় সমর্থকরা কদিন আগেও ভেবেছিলেন কি এমন দিন দেখতে হবে তাদের! ঘরের ছেলে সার্জিও রামোস যেখানে লিওনেল মেসির রণকৌশল আটকাতে ব্যস্ত থাকার কথা, সেখানে ‘চিরশত্রু’ মেসির কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মাদ্রিদের বিপক্ষে লড়াইয়ে নামবেন রামোস। এমনটি রামোস নিজেও চাননি। সতীর্থ হিসেবে মেসিকে পেলেও প্রতিপক্ষ হিসেবে চাননি রিয়ালকে। তবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর লড়াইয়ে যেহেতু নামতেই হবে রিয়ালের বিপক্ষে, সেখানে জয় ছাড়া ভিন্ন ভাবনা নেই রামোসের।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর ড্রয়ের পর রামোস জানিয়েছেন, রিয়ালের বিপক্ষে তার দল পিএসজিকে জেতাতে প্রয়োজনে মরতেও রাজি এই ডিফেন্ডার।

রিয়ালের সঙ্গে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক চুকিয়ে চলতি মৌসুমের শুরুতে পিএসজিতে যোগ দিয়েছেন রামোস। ভাগ্যের পরিহাসে ক্লাব ছাড়ার পরপরই সেই রিয়ালের বিপক্ষে খেলতে হবে রামোসকে। পিএসজির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে চাওয়া রামোস জানালেন, ‘আমি পিএসজিকে পরের রাউন্ডে নিতে সবকিছু করব। তারা আমার ওপর ভরসা রেখেছে। আমি এখন তাদের জন্য মরতেও রাজি।’

মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ড্রয়ে শুরুতে প্রতিপক্ষ হিসেবে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে পেয়েছিল পিএসজি। তবে টেকনিক্যাল ভুলের কারণে পরে নতুন করে আবার ড্র হয়। সেখানে প্রতিপক্ষ হিসেবে রিয়ালকে পায় পিএসজি। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ফেরা রামোসকে আনন্দিত করলেও প্রতিপক্ষ হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদকে না পেলেই খুশি হতেন রামোস।

রামোস বলেন, ‘আমি প্লেনে বসে শুনলাম আমরা প্রতিপক্ষ হিসেবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে পেয়েছি। প্রতিপক্ষ হিসেবে তাদের আমি বেশ পছন্দ করি। কিন্তু পরে সেটি বাতিল হয়ে গেল। রিয়াল মাদ্রিদকে না পেলেই খুশি হতাম। যদিও সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ফেরার ব্যাপারটা আনন্দ দিচ্ছে। কারণ, আমি করোনাভাইরসের কারণে ভালোভাবে বিদায় নিতে পারিনি। ভাগ্য অনেক অনিশ্চিতভাবে কাজ করে। অন্য কোনো দলের বিপক্ষে পড়লে খুশি হতাম। কারণ, সবাই জানে আমি রিয়াল মাদ্রিদকে কতটা ভালোবাসি।’