শীতের আমেজ রাজধানীতে

96

বুধবার রাত থেকেই কেমন ঠান্ডা ঠান্ডা লাগছে! মুখের চামড়াও শুস্ক হয়ে আসছে। হ্যা, শীত অবশেষে এসেই গেছে। বৃহস্পতিবারের ভোরের আবহাওয়াটাও তাই বলছে। কুয়াশাচ্ছন্ন চারদিক,আছে শিশিরের ছোঁয়াও।

বৃহস্পতিবারের (৫ নভেম্বর) সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন উদ্যানে কুয়াশার দেখা মিলেছে, মিলেছে শিশিরে ভেজা ঘাসও। এমনটাই বলছিলেন প্রাতঃভ্রমণকারী পল্টন-রমনার বাসিন্দারা।

 

Dhaka-3

বৃহস্পতিবার ভোরে সোহরাওয়ার্দী ও রমনা উদ্যান ঘুরে দেখা যায়, শীতের আমেজ শুরু হওয়ায় উদ্যানে প্রাতঃভ্রমণকারীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকির থাকলেও অনেকেই পরিবার-পরিজনসহ উদ্যানে আসছেন।

ইস্কাটনের বাসিন্দা রফিক উদ্দিন বলেন, ভোরে ঘণ্টাখানেক হাঁটাহাঁটি করে বাসায় ফিরলে সারা দিনের ক্লান্তি কেটে যায়। বর্তমানে নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়া সত্যিই চমৎকার।

আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে তাপমাত্রা কমছে। বুধবার ৪ (নভেম্বর) দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজধানীতে, ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বনিম্ন রাজশাহী সদর ও বদলগাছীতে, ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ।

Dhaka-1

বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগে রাতের তাপমাত্রা সামান্য কিছু কমতে পারে। এছাড়া দেশের অন্য রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। পরবর্তী পাঁচ দিনের আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, রাতের তাপমাত্রা ক্রমশ হ্রাস পেতে পারে।