সড়কে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাল কার্ড দেখিয়েছে শিক্ষার্থীরা

42

সড়কের অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাল কার্ড দেখিয়েছে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে রামপুরা ব্রিজের পাশে হাতিরঝিল কর্নারে শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি পালন করেন।

কর্মসূচিতে একরামুন্নেসা হাইস্কুল, খিলগাঁও মডেল হাইস্কুল, খিলগাঁও মডেল বিশ্ববিদ্যালয় কলেজসহ আশপাশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরে অংশ নেয়।

তবে অন্যান্য দিনের মতো শিক্ষার্থীরা যান চলাচল বন্ধ করেননি। তারা সড়কের এক পাশে অবস্থান নিয়ে কর্মসূচি পালন করেন।

১১ দফা দাবিতে গত কয়েকদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন শিক্ষার্থীরা। গতকাল শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনেও রামপুরায় সড়কে অবস্থান নেন তারা। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রামপুরা ব্রিজের পাশে হাতিরঝিল কর্নারে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। পরে পুলিশ এসে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।

আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধি খিলগাঁও মডেল কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী সামিয়া বলেন, এইচএসসি পরীক্ষা চলছে। এ অবস্থায় পরীক্ষার্থীদের যাতে কোন সমস্যা না হয় সেটি আমরা লক্ষ্য রাখছি। এবং সে অনুযায়ী আমাদের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিকে রামপুরায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে কেন্দ্র করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়। দায়িত্বরত এক পুলিশ জানান, আন্দোলনকে কেন্দ্র করে যেকোনো ধরনের অরাজকতা ঠেকাতে তারা সতর্ক অবস্থানে রয়েছেন।

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির পর গত ৭ নভেম্বর থেকে ঢাকাসহ সারা দেশে বাসের ভাড়া ২৬ থেকে ২৭ শতাংশ বাড়ানো হয়। পরিপ্রেক্ষিতে ১৮ নভেম্বর অর্ধেক ভাড়ার দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে ২৪ নভেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন।

পরে রামপুরায় মাঈনুদ্দিন নামের এক শিক্ষার্থী অনাবিল পরিবহন বাসের চাপায় নিহত হন। তার পর থেকে নিরাপদ সড়ক, অর্ধেক ভাড়াসহ ১১ দফা দাবিতে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে গত মঙ্গলবার রাজধানীতে বাসে অর্ধেক ভাড়ার দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেয় পরিবহন মালিক সমিতি।